আমাজন অরণ্য নিয়ে অবিশ্বাস্য এবং অজানা সব তথ্য

আমাজন অরণ্য পৃথিবীর সবচেয়ে বড় রেইনফরেস্ট। এ অরণ্য কে বলা হয় পৃথিবীর ফুসফুস। অথচ গত ১ মাস যাবৎ পুড়ে চলেছে এ গহীন অরণ্যটি। চলুন জেনে নেয়া যাক এ অরণ্যটির অবিশ্বাস্য এবং হতবাক করে দেয়া কিছু তথ্য।

✬ নানা রকম প্রজাতির বাসস্থান হিসেবে সমৃদ্ধ এই আমাজন। এই বনে প্রায় ৩৯০ বিলিয়ন বৃক্ষ রয়েছে যেগুলো প্রায় ১৬০০০ প্রজাতিতে বিভক্ত।

✬ পৃথিবীর ২০% অক্সিজেন আসে আমাজন থেকে।

✬ এই বনে ৩০০শ এর বেশী উপজাতি বাস করে।

✬ দক্ষিণ আমেরিকায় অবস্থিত এই বনটি নয়টি দেশ ঘিরে। সবচেয়ে বেশি জায়গা ব্রাজিলের (৬০ ভাগ), পরেই পেরু (১৩ ভাগ)। আরও আছে কলম্বিয়া, ভেনেজুয়েলা, ইকুয়েডর, বলিভিয়া, গায়ানা, সুরিনাম এবং ফরাসি গায়ানা।

✬ আমাজান বন পৃথিবীর সবচেয়ে বড় রেইনফরেস্ট (প্রচুর উঁচু উঁচু গাছে ভরা, উষ্ণ আবহাওয়া এবং প্রচুর বৃষ্টিপাতের বনাঞ্চলকে বলা হয় রেইনফরেস্ট।)। প্রচুর পরিমাণে গাছপালা থাকায় একে বলা হয় ‘পৃথিবীর ফুসফুস’।

✬ বিশ্বের শতকরা ২৫ ভাগ ফার্মাসিটিক্যাল ঔষধের গাছ আসে এই আমাজান অরণ্য থেকে।

✬ এই বনে যত গাছ বিজ্ঞানীরা ঔষধের জন্য পরীক্ষা করেছেন তার পরিমাণ মোট পরিমাণের মাত্র ১%, বাকি ৯৯% গাছই এখনো পরীক্ষা করা সম্ভব হয়নি।। কে জানে, সেই বাকি ৯৯% গাছে হয়তো রয়ে গেছে বিভিন্ন নতুন কোনো রোগের
চিকিৎসা।
✬ সারা পৃথিবীর লোকজন যেখানে মাত্র ২০০ জাতের ফল ভোগ করে সেখানে আমাজানের বাসিন্দারা ২০০০ জাতের বিভিন্ন ফল উপভোগ করেন।

✬ বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, প্রতি স্কয়ার কিমি’তে এক হাজারেরও বেশি বৈচিত্রের জীবের বসবাস।

✬ এক স্কয়ার কিমিতে যে পরিমাণ গাছপালা আছে তার ওজন গড়ে ৯১ হাজার টন।

✬ অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি এই বনে দুই হাজার প্রজাতির পাখি ও প্রায় সম পরিমাণ প্রজাতির প্রাণির ঘর সংসার এই অরণ্যে।

✬ ৩ হাজার প্রজাতির মাছের বাস আমাজানের জলাভূমিতে।

✬ ১.৩ লক্ষ প্রজাতির প্রাণি আছে যাদের কোন মেরুদণ্ড নেই।

✬ ২.৫ মিলিয়ন প্রজাতির শুধু পোকামাকড় বাস করে।

✬ ৪০ হাজার প্রজাতির বিচিত্র উদ্ভিদের বসত বাড়ি।

✬ আমাজনের শাপলা ফুল পৃথিবীর সবচেয়ে বড় শাপলা হিসেবে গণ্য করা হয়। এরা ৬ ফুট পর্যন্ত বাড়তে পারে।। তবে দৈর্ঘ্যের তুলনায় এর ওজন হয় খুবই কম।

✬ মাঝে মাঝে আমাজানের কোনো জলাশয় বা বদ্ধ পানিতে এতো বেশি শাপলা জন্মে যে, সেখানে শাপলারএ কটা মেঝের মত তৈরি হয়। যার উপর দিয়ে একটা ছোট বাচ্চা নির্দ্বিধায় হেঁটে যেতে পারে।

✬ আমাজানের অর্কিড ফুল তার সৌন্দর্য এবং সুগন্ধের জন্য জগত বিখ্যাত।

✬ আমাজনের বর্তমান আয়তন হলো ২.৬ মিলিয়ন বর্গ কিলোমিটার। পূর্বে কত ছিল ৬ মিলিয়ন বর্গ কিলোমিটার। বন ধ্বংস এবং বাসস্থানের জন্য বন কাটায় আজ এর আয়তন এতো কমেছে।

✬ পৃথিবীতে যত ধরনের গাছপালা আছে তার মধ্যে ১/৩ (এক তৃতীয়াংশ) পাওয়া যায় এই আমাজান বনে।

✬ গাছপালা নিধন এবং খনি খননের কাজের জন্য আমাজানে প্রতি সেকেন্ডে একটি ফুটবল মাঠের আয়তনের সমান জায়গা ধ্বংস করা হচ্ছে।

✬ এখানে এক শ্রেণীর বাঁশগাছ দিনে ৯ ইঞ্চি পর্যন্ত বাড়তে পারে।

✬ গাছপালাগুলো একেকটা একেকটার সাথে এমন ঘনভাবে লাগানো যে এক ফোঁটা বৃষ্টির পানি সবচেয়ে বড় গাছের শীর্ষ থেকে মাটিতে পৌঁছতে প্রায় ১০ মিনিট সময় নেয় (ব্যাপারটা পরিষ্কার করি, সবচেয়ে উঁচু গাছ থেকে তার চেয়ে ছোটটায় পড়ে, এভাবে আস্তে আস্তে মাটিতে আসে। কিন্তু গাছের পরিমাণ এতই বেশি যে হয়তো এক ফোঁটা পানিকে প্রায় ৬০ টি গাছের পাতা পার হয়ে মাটিতে পৌঁছতে হয়।

✬ আমাজনের প্রতি ৪ বর্গকিলোমিটার স্থানে ১৫০০ বিভিন্ন জাতের ফুলের গাছ, ৭৫০ রকমের গাছ, ৪০০ ধরনের পাখি, এবং ১৫০ প্রকারের প্রজাপতি আছে।

 

আরো পড়ুন – পুড়ে ধ্বংস হচ্ছে পৃথিবীর ফুসফুস “আমাজন”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: